Shopup Apps এর মাধ্যমে প্রোডাক্ট বিক্রি করে রোজগার করুন

আজকে আমি আপনাদের এই আর্টিকেলের ভিতরে বলব কিভাবে আপনারা   শপআপ অ্যাপস এর মাধ্যমে ঘরে  বসেই  প্রোডাক্ট  

বিক্রি করে  অর্থ  উপার্জন করতে পারবেন। 

Shopup Apps এর মাধ্যমে প্রোডাক্ট বিক্রি করে রোজগার করুন


আপনাদের ভিতরে অনেক মানুষ আছে যারা বর্তমান সময়ে চাকরি খুঁজতে থাকে, কিন্তু বর্তমান সময়ে কিন্তু চাকরির বাজার অনেক খারাপ চলতেছে। প্রত্যেক বছর প্রায় 22 লাখ চাকরিপ্রার্থী তৈরি হয় , অর্থাৎ চাকরি করার জন্য 22 লাখ মানুষ প্রত্যেক বছর রেডি  থাকে  

{tocify} $title={Table of Contents}

আর এত বিশাল জনসংখ্যার ভিতরে কিন্তু আপনাদের জন্য চাকরি পাওয়াটা  অনেক মানুষের জন্য কষ্টকর হয়ে দাঁড়াচ্ছে। আর আপনারা যদি এর ভিতর সবাইকে  পিছনে ফেলে চাকরি করতে চান তাহলে অবশ্যই  আপনাদেরকে সবার থেকে আলাদা হতে হবে   

আপনার ভিতরে এবং প্রতিভা  থাকা লাগবে যে প্রতিভা অন্য কারো ভিতর নেই  সেটা যদি আপনার থাকে তাহলে কিন্তু আপনি অবশ্যই চাকরি করতে পারবেন   

আর বর্তমান সময়ে কিন্তু এখন আপনারা ঘরে বসে অর্থ উপার্জন করতে পারবেন বিভিন্ন মাধ্যমে আপনারা কিন্তু ফ্রিল্যান্সিংয়ের মাধ্যমে উপরে বসে অর্থ উপার্জন করতে পারবেন অথবা আপনারা যে বিষয়গুলো সম্পর্কে জানেন সেই বিষয়গুলো সম্পর্কে বিভিন্ন মানুষকে শিখিয়ে কিন্তু  অর্থ উপার্জন  করতে পারবেন খুব সহজেই। 

আর আজকে আমি আপনাদের সাথে কিন্তু এই বিষয়গুলো নিয়ে আলোচনা করবো না আজকে আমি আপনাদের সাথে আলোচনা করব কিভাবে আপনারা বাংলাদেশের যে , শপআপ কোম্পানি রয়েছে আপনারা তাদের যে প্রোডাক্ট গুলো রয়েছে, সেগুলো বিক্রি করে কিভাবে আপনারা ঘরে বসে  অর্থ উপার্জন  করতে পারবেন। 

আজকে কিন্তু মূলত সেই বিষয় গুলো সম্পর্কে এই আর্টিকেলের ভিতরে আপনারা বিস্তারিত সকল তথ্য জানতে পারবেন। 

Shopup কিভাবে রিসেলার একাউন্ট করবেন

 শপআপ কোম্পানিতে যদি আপনারা কাজ করেন তাহলে সে ক্ষেত্রে আপনাদেরকে সবার প্রথমে তাদের মোবাইল অ্যাপস install করে নিতে হবে । আর তারপর আপনাদেরকে তাদের মোবাইল অ্যাপস টি ওপেন করে নিতে হবে।

এরপরে আপনাদেরকে রেজিস্ট্রেশন করার জন্য একটি ফরম পাবেন সেখানে আপনাদেরকে ক্লিক করতে হবে  

রেজিস্ট্রেশন ফর্মে আপনারা দেখতে পারবেন যে লেখা রয়েছে আপনার প্রথম নাম এবং লাস্ট নাম  দিতে বলা হচ্ছে  এবং তার নিচে লেখা থাকবে আপনাদের মোবাইল নাম্বারটি দিন সেখানে আপনাদের যে মোবাইল নাম্বারটি রয়েছে  অ্যাক্টিভ  মোবাইল নাম্বার সেই মোবাইল নাম্বারটি দিবেন   

এরপরে আপনাদেরকে আপনাদের বিকাশ নাম্বারটি দিতে হবে অর্থাৎ আপনারা  এই কোম্পানির প্রোডাক্ট গুলো বিক্রি করার পরে আপনাদের কমিশনের টাকা এই বিকাশ নাম্বারে নিতে চান সেই বিকাশ নাম্বারটি আপনাদেরকে রিসেলার একাউন্ট করার সময় এখনে বসাতে হবে।  

আর তারপরে আপনাদের দোকানের নাম দিতে হবে অর্থাৎ আপনাদের যদি কোনো ফেসবুক পেজ থাকে তাহলে সেই নামটি আপনাদের ফরম পূরণ করার সময় দেওয়া লাগবে , আ তারপরে  আপনারা  রেজিস্ট্রেশন বাটন ক্লিক করলে কিন্তু আপনাদের রেজিস্ট্রেশনটি  সফলভাবে করা হয়ে যাবে  


Read More - টুইটার মার্কেটিং কীকেন এবং কিভাবে করতে পারবেন?


আর তারপরে আপনারা ফরম পূরণ করার সময় যে মোবাইল নাম্বারটা দেবেন সেই নাম্বারে একটা ওটিপি যাবে অর্থাৎ একটি ছয় সংখ্যার কোড যাবে সেই কোড নম্বরটি আপনাদের বসিয়ে দেওয়া লাগবে আর তারপরে কিন্তু আপনাদের একাউন্টে করা হয়ে যাবে   

অর্থাৎ আপনাদের কিন্তু শপআপ কোম্পানিতে রিসেলার একাউন্ট করা হয়ে যাবে খুব সহজেই এই ফরমটি পূরণ করার মাধ্যমে   আর তারপর থেকে কিন্তু আপনারা এই কোম্পানির যে সকল প্রোডাক্ট গুলো রয়েছে সেই প্রোডাক্ট গুলো বিক্রি করে ঘরে বসেই উপার্জন করতে পারবেন। 

প্রোডাক্ট গুলো কিভাবে বিক্রি করবেন

এখানে কিন্তু আপনারা সকল ধরনের প্রোডাক্ট পেয়ে যাবেন আর আপনারা কিন্তু এই প্রোডাক্ট গুলো অর্থাৎ এই প্রোডাক্টগুলোর ছবি  তার সাথে প্রোডাক্ট এর ডিটেলস তথ্য কপি করে,ফেসবুক গ্রুপ অথবা ফেসবুক পেজের মাধ্যমে শেয়ার করতে পারেন আর এর মাধ্যমে কিন্তু আপনারা বিক্রি করতে পারবেন অর্থাৎ, এই ভাবেই কিন্তু আপনাদেরকে এখানে কাজ করতে হবে। 

অথবা আপনাদের যদি কোন ওয়েবসাইট থাকে তাহলে কিন্তু আপনার এই ওয়েবসাইটের মাধ্যমে প্রমোট করতে পারবেন আপনাদের ওয়েবসাইটের মাধ্যমে কিন্তু এই প্রোডাক্ট গুলো বিক্রি করতে পারবেন খুব সহজেই আপনাদের ওয়েবসাইটে যদি পরিচিত থাকে তাহলে কিন্তু এখান থেকে অর্থাৎ, তাদের প্রোডাক্ট গুলো বিক্রি করে কিন্তু বেশ ভালো পরিমাণে একটা  বিক্রি আনতে পারবেন  

আর তাছাড়া ও যদি আপনারা অন্য কোনো মাধ্যমে প্রমোট করে বিক্রি করতে পারেন তাহলে সেক্ষেত্রে কোন সমস্যা নাই আপনারা ইনস্টাগ্রাম অথবা ইউটিউবে ভিডিও বানিয়ে কিন্তু অথবা টুইটারের মাধ্যমে কিন্তু এই প্রোডাক্ট গুলো বিক্রি করতে পারবেন যদি আপনাদের অনেক বেশি পরিমাণে  অডিয়েন্স থাকে তাহলে। 

আর এছাড়াও কিন্তু আপনারা ইমেইল মার্কেটিং সোশ্যাল মিডিয়া মার্কেটিং এর মাধ্যমে এই প্রোডাক্ট গুলো বিক্রি করে অর্থ উপার্জন করতে পারবেন খুব সহজেই  

ডেলিভারি চার্জ কত টাকা আপনারা কাস্টমারদের  জানাবেন

আপনারা যদি এই কোম্পানিতে কাজ করেন অর্থাৎ তাদের প্রোডাক্ট গুলো নিয়ে যদি আপনারা  বিক্রি করে দেন তাহলে সেক্ষেত্রে কিন্তু আপনারা ঢাকার ভিতরে যারা রয়েছে তাদের জন্য 49 টাকা তারা নিয়ে থাকে  এবং ঢাকার বাইরে যে সমস্ত জায়গা আছে সেখানে কিন্তু 109 টাকা ধার্য করা হয়ে থাকে অর্থাৎ ঢাকার ভিতরে 49 টাকা এবং ঢাকার বাইরে সব জায়গাতে 109 টাকা ডেলিভারি চার্জ তারা নিয়ে থাকে  

আর আপনারা কিন্তু প্রোডাক্ট বিক্রি করার সময়এই বিষয়টা আপনাদের কাস্টমারদের কে বলে নিবেন যে ডেলিভারি চার্জ কত টাকা সেটা যদি আপনারা বলে দেন তাহলে কিন্তু আপনাদের যে প্রোডাক্ট গুলো বিক্রি করবেন সেই প্রোডাক্ট গুলো যখন ডেলিভারি বয় ডেলিভারি দিতে যাবে তখন কিন্তু তার কোন সমস্যা হবে না কাস্টমারদের কোনো সমস্যা হবেনা। 


কাস্টমারদের কারণ তারা তো আগে থেকে জানবে যে তাদেরকে কত টাকা পেমেন্ট করতে হবে আর এই বিষয়টা আপনারা প্রডাক্ট এর তথ্য  লেখার সাথে সাথে দিয়ে দেবেন। 

তাহলে তারাও একটা ধারণা পেয়ে যাবে এবং আপনার কাজের জন্য কিন্তু অনেক সুবিধা হবে ,আশা করি বিষয়টা বুঝতে পেরেছেন  

পেমেন্ট কিভাবে পাবেন

এখানে যদি আপনারা কাজ করেন তাহলে কিন্তু প্রোডাক্ট ডেলিভারি হওয়ার সাত দিন পরে আপনারা এখান থেকে পেমেন্ট পাবেন অর্থাৎ আজকে যদি আপনাদের কোন প্রোডাক্ট ডেলিভারি হয় তাহলে সেই দিন থেকে শুরু করে পরের সাতদিন পর আপনারা আপনাদের  পেমেন্ট আপনাদের বিকাশ একাউন্টে পেয়ে যাবেন  

পেমেন্ট  তিনি আপনাদেরকে চিন্তা করতে হবে না কারণ আমি এখানে নিজেও কাজ করেছি এই কোম্পানি এটা বিশ্বস্ত কোম্পানি  

Read More -  ফেসবুক মার্কেটিং A TO Z আজকেই শিখে কাজ শুরু করে দিন

আপনারা চাইলে এখানে কাজ শুরু করতে পারেন এছাড়া আপনারা তাদের পূর্ববর্তী কাজ গুলো দেখতে পারেন অথবা পূর্ববর্তী অর্থাৎ এর আগে যারা কাজ করেছে তাদের সাথে কথা বলে নিতে পারেন যে আসলেই কি এই কোম্পানি পেমেন্ট করে কি করে না সেই বিষয়গুলো সম্পর্কে জেনে নিতে পারেন কোন সমস্যা নেই। 

আমাদের শেষ কথা  

তাহলে আজকের এই আর্টিকেলের ভিতরে আপনার বিস্তারিতভাবে জানতে পারলাম  অর্থাৎ  স্টেপ  বাই -step জানতে পারলাম যে কিভাবে আপনারা সবার কোম্পানির এটিকে ব্যবহার করে তাদের প্রোডাক্ট গুলো, 

বিক্রি  করে বেশ ভালো পরিমাণে একটা  মুনাফা অর্জন  করতে পারবেন সে বিষয়গুলো সম্পর্কে বিস্তারিত আলোচনা করা হয়েছে   

Read More - ইনস্টাগ্রাম মার্কেটিং কিকেন কিভাবে করতে হয়জেনে নিন 


এছাড়া আপনারা এখানে কিভাবে বিক্রি করবেন প্রোডাক্টগুলোকে এবং আপনাদেরকে কিভাবে তারা পেমেন্ট করবে এবং কত তারিখে পেমেন্ট করবে এবং আপনারা কোন কোন পদ্ধতিতে পেমেন্ট গুলো নিতে পারবেন সেই সমস্ত বিস্তারিত তথ্য শেয়ার করা হয়েছে  

বর্তমান সময়ে কিন্তু অনেকেই স্বভাবের মাধ্যমে রিসেলিং  করে বেশ ভালো পরিমাণে এটা মুনাফা অর্জন করেছে আর আপনারা চাইলে কিন্তু আজকে থেকে শুরু করে দিতে পারেন  তাদের সকল প্রোডাক্ট গুলো নিয়ে প্রমোট করা এবং এর মাধ্যমে কিন্তু একটা ভালো পরিমাণে এমাউন্ট আপনারা প্রতি মাসে রোজগার  করতে পারবেন  

Admin

আমি একজন স্টুডেন্ট , বর্তমানে একাউন্টিং বিষয় নিয়ে অনার্স করতেছি, আর তার সাথে সাথে লেখালেখি করি। ফ্রী সময় যখন হয় তখন আমি যে বিষয়গুলো জানি সেই বিষয়গুলো সম্পর্কে আপনাদেরকে একটু আইডিয়া দেওয়ার চেষ্টা করি এই ওয়েবসাইটের মাধ্যমে।

Post a Comment

Previous Post Next Post