অল্প পুজিতে সবথেকে সেরা ৮টি ব্যবসার আইডিয়া জেনে নিন

আজকে আমাদের আর্টিকেলে অল্প পুজিতে

লাভজনক ব্যবসার আইডিয়া সম্পর্কে আলোচনা করব ,


অল্প পুজিতে লাভজনক সবথেকে সেরা ৮টি ব্যবসার আইডিয়া জেনে নিন


আর আপনারা যদি অল্প পুঁজিতে ব্যবসা করার চিন্তা-ভাবনা করে থাকেন বা কিভাবে  অল্প পুঁজি দিয়ে বেশি পরিমাণে লাভ করা যায় এবং এই ব্যবসায় গুলোর ভিতরে কি কি রয়েছে এই সকল বিষয়গুলো সম্পর্কে জানার জন্য আগ্রহ থেকে থাকে তাহলে আজকেরে আর্টিকেলটি প্রথম থেকে শেষ পর্যন্ত  পড়তে থাকুন

{tocify} $title={Table of Contents}

আশা করি যে আজকের এই যে দশটি  ব্যবসার আইডিয়া সম্পর্কে আলোচনা করব এই দশটি ব্যবসার ভেতর থেকে আপনারা যে কোন একটি ব্যবসা বেছে নিয়ে সেই ব্যবসাটি শুরু করতে পারবেন   তাহলে আর কথা না বাড়িয়ে আসুন ১০টি  ব্যবসার আইডিয়া সম্পর্কে বিস্তারিত ভাবে জেনে নিন  

1.হোমমেড ফুড

আপনাদের ভিতরে কারো যদি  রান্না করার  হাত  অনেক ভালো হয়ে থাকেতাহলে কিন্তু আপনারা ইচ্ছে করলেই বিভিন্ন ধরনের  হোমমেড খাবারের ব্যবসা করা শুরু করে দিতে পারেন। বর্তমান সময়ে কিন্তু এখন সকলেই  হোমমেড খাবার  বেশি পরিমাণে পছন্দ করে থাকে।  আর তাই আপনাদের জন্য কিন্তু এই ব্যবসাটা হতে পারে একটা লাভজনক ব্যবসার ভিতর অন্যতম একটি ব্যবসা। 

2. ইলেকট্রনিক গ্যাজেটের ব্যবসা 

এখন বর্তমান সময়ে  মানুষের সব থেকে বেশি নির্ভরশীল হয়ে পড়েছে  প্রযুক্তির উপর।  আর তাই এই তথ্য প্রযুক্তির যুগে নিজেদেরকে টিকিয়ে রাখার জন্য কিন্তু অবশ্যই আপনাদের  প্রযুক্তির সর্বোচ্চ ব্যবহার নিশ্চিত  করা লাগবে  

বর্তমান সময়ে কিন্তু এখন সকল ধরনের , সকল বয়সের মানুষের  প্রত্যেক দিনের দরকারি জিনিসপত্র হলো  ইলেক্ট্রনিক গেজেট।  আর আপনারা যদি এই প্রোডাক্টটা নিয়ে ব্যবসা শুরু করতে পারেন তাহলে কিন্তু  আপনারা নিজেদেরকে উচ্চতর আসনে অধিষ্টিত  করে ফেলতে পারবেন খুব সহজে  

. রিসেলার হিসেবে কাজ করতে পারেন  

রিসেলার  হিসেবে বিভিন্ন কোম্পানিতে জয়েন হতে পারেন, বেচেলার হলো আপনি একটা কোম্পানির প্রোডাক্ট বিক্রি করে দিবেন আর তার বিনিময়ে আপনাকে কিছু টাকা তারা দিবেঅর্থাৎ আপনাকে নির্দিষ্ট পরিমাণে একটা  কমিশন দিবে   

যখন মনে করুন আপনি একটা কোম্পানির প্রোডাক্ট বিক্রি করে দিলেন আর সেই কোম্পানি থেকে প্রোডাক্ট বিক্রি করার পরে অর্থাৎ ডেলিভারি  করে দেওয়ার পরে আপনাকে মনে করুন একটা প্রোডাক্টের দাম 1000 টাকা আপনাকে সেখান থেকে 200 টাকা দিলো আর এই যে 200 টাকা  দিল , এটাই আপনার কমিশন    

অর্থাৎ এখানে আপনাকে বিভিন্ন কোম্পানির প্রোডাক্ট বিক্রি করে দিতে হবে তাদের কোম্পানির প্রচার করতে হবে অর্থাৎ আপনারা যদি কোন প্রোডাক্ট বিক্রি করতে পারেন তবে আপনার টাকা পাবেন অন্যথায় আপনারা কোন টাকা পাবে না আশা করি বিষয়টা বুঝতে পেরেছেন   

এছাড়াও এই ব্যবসা আপনারা কিভাবে শুরু করবেন এবং এই ব্যবসা কোন কোম্পানিতে কাজ করতে পারবেন সেই বিষয়গুলো সম্পর্কে আমাদের ওয়েবসাইটে একটি বিস্তারিতভাবে আর্টিকেল প্রকাশ করা হয়েছে এই আর্টিকেলটি চাইলে আপনার একবার  পরে আসতে পারেন তাহলে বিস্তারিত ধারণা পেয়ে যাবেন   

Read More - Shopup এর মাধ্যমে প্রোডাক্ট বিক্রি করে রোজগার করুন

. কনটেন্ট রাইটার হিসেবে কাজ করতে পারেন 

আপনারা যদি লেখালেখিতে ভালো হয় তাহলে আপনারা বিভিন্ন কোম্পানিতে কনটেন্ট রাইটার হিসেবে কাজ করতে পারবেন। আপনারা যে কোন বিষয়ে যদি অভিজ্ঞ এবং দক্ষ হয়ে থাকেন তাহলে কিন্তু এই বিষয়টা সম্পর্কে আপনারা বিভিন্ন বিষয়ে জানবেন এবং সেই বিষয়গুলো কিন্তু আপনারা আপনাদের লেখার মাধ্যমে ফুটিয়ে তুলতে পারেন। 

অর্থাৎ আপনারা আপনাদের নিজেদের অভিজ্ঞতা সম্পর্কে থাকবে সেই বিষয়টা আপনারা লেখা আকারে সকলের সাথে শেয়ার করবেন এটাই হলো কনটেন্ট রাইটিং  

Read More - ইনস্টাগ্রাম মার্কেটিং কিকেন কিভাবে করতে হয়জেনে নিন

কনটেন্ট রাইটিং করে কিন্তু বেশ ভালো  পরিমাণে একটা মুনাফা অর্জন করা সম্ভব বর্তমান সময়ে এখন অনেকেই কনটেন্ট রাইটিং পেশার সাথে জড়িত রয়েছে তাই আপনারা যদি এই পেশার সাথে জড়িত হতে চান তাহলে কিন্তু আপনারা হতে পারেন  

আর এর ফিউচার কিন্তু অনেক ভালো পুরো বিশ্বের ভিতরে কিন্তু বেশিরভাগ কান্ট্রিতে এখন কোন জায়গায় রয়েছে বেশিরভাগ মানুষই এখন  কনটেন্ট রাইটিং  এই পেশাতে আসার জন্য  অনেক আগ্রহী 

5. Digital marketing 

বর্তমান সময়ে কিন্তু ইন্টারনেটের গুরুত্ব বেড়েই চলেছে , আর বর্তমানে এখন কিন্তু ডিজিটাল মার্কেটিং এর প্রচুর চাহিদা রয়েছে অনেক কাজ রয়েছে এই সেক্টরে তাই আপনারা যদি ডিজিটাল মার্কেটিং এর কাজ জানেন তাহলে কিন্তু এই সেক্টরে এসে বেশ ভালোভাবেই একটা মুনাফা অর্জন করতে পারবেন 

আপনারা যদি ডিজিটাল মার্কেটিং এর কাজগুলো করেন তাহলে কিন্তু বিভিন্ন দেশের সাথে কাজ করতে পারবেন অর্থাৎ বিভিন্ন দেশের কোম্পানি গুলো এর সাথে কাজ করতে পারবেন

ডিজিটাল মার্কেটিং এর ভেতরে কিন্তু অনেকগুলো কাজ রয়েছে আপনারা যে কোন একটা কাজে যদি এক্সপার্ট হন তাহলে সেই কাজ করে কিন্তু আপনারা অনেক দূর এগিয়ে যেতে পারবেন এবং এই কাজ করে আপনার ভালো পরিমাণে প্রতি মাসে মুনাফা অর্জন করতে পারবেন  

6. T-shirt printing 

আপনাদের যদি ডিজাইন করে দেখতো ভালো হয় এবং নতুন নতুন কোন ইউনিক কিছু করতে পারেন তাহলে কিন্তু আপনারা বিভিন্ন টি-শার্ট ডিজাইন করে বেশ ভালো করে মানে একটা মুনাফা অর্জন করতে পারবেন   

আপনারা যদি সবার থেকে আলাদা ডিজাইন করতে পারেন তাহলে কিন্তু আপনাদের করার টি-শার্টগুলো মার্কেটে বেশ ভালোভাবে চলবে বলে আশা করা যায়   

কারণ মানুষেরা নতুন কিছু চায় আর সেটা যদি আপনারা দিতে পারেন তাহলে কিন্তু আপনাদের সফলতা কেউ ঠেকাতে পারবেনা। আর এই ব্যবসায় শুরু কিন্তু আপনারা অল্প টাকার ভিতরে করতে পারবেন , টি-শার্ট প্রিন্টিং করার যে মেশিন গুলো রয়েছে সেগুলো কিনে আপনারা এই ব্যবসায় শুরু করে দিতে পারেন আজকে থেকে    

7. Instagram Influencer 

আপনারা চাইলে ইনস্টাগ্রামে ইনফ্লুয়েন্সার হিসেবে কাজ করতে পারেনআপনাদের প্রোফাইলে যদি প্রচুর পরিমাণে ফলোয়ার থাকে এবং প্রচুর পরিমাণে অডিয়েন্স থাকে তাহলে সেই অডিয়েন্সকে কাজে লাগে কিন্তু আপনার ব্যবসা শুরু করতে পারেন

আর আপনাদের যখন প্রোফাইলে অনেক ভালো থাকবে তখন দেখবেন যে বিভিন্ন কোম্পানী আপনাদেরকে স্পন্সর করার জন্য মেসেজ করতেছে দেখুন আপনারা প্রতিটা স্পন্সর করার জন্য কিন্তু একটা নির্দিষ্ট পরিমাণে অর্থ তাদের কাছ থেকে নিতে পারবেন   

এরপরে  আপনারা বিভিন্ন কোম্পানির প্রোডাক্ট বিক্রি করে  মুনাফা অর্জন করতে পারবেন  তারপরে  আপনারা  এফিলিয়েট মার্কেটিংয়ের মাধ্যমে কিন্তু আপনাদের ইনস্টাগ্রাম প্রোফাইল থেকে বেশ ভালো পরিমাণে একটা মুনাফা অর্জন করতে পারবেন।

এছাড়া আপনারা আরো কয়েকটা উপায় রয়েছে যেগুলোর মাধ্যমে ইনস্টাগ্রাম থেকে  ইনফ্লুয়েন্স আর  হিসেবে যদি কাজ করেন তাহলে  আপনারা অন্য সকল মানুষদের ইনস্টাগ্রাম প্রোফাইল প্রমোট করে  দেওয়ার মাধ্যমে কিন্তু তাদের থেকে টাকা নিতে পারবেন  

যখন আপনার ইনস্টাগ্রাম প্রোফাইলে প্রচুর পরিমাণে ফলোয়ার থাকবে তখন কিন্তু আপনারা চাইলে যে কারও নতুন অ্যাকাউন্ট প্রমোট করে দিতে পারবেন আর সেই একাউন্টে কিন্তু কয়েক মুহূর্তের ভিতর আপনারা 1000 ফলোয়ার বা পাঁচ হাজার ফলোয়ার করে দেওয়া আপনাদের জন্য খুব বেশি একটা কষ্টকর হবে না আপনারা কিছুক্ষনের ভিতরেই সেই আইডিতে একই রকমের এর থেকেও বেশি ফলোয়ার করে দিতে পারবেন,

আর যার আইডি আপনারা প্রমোট করে দেবেন তা থেকে কিন্তু আপনারা নির্দিষ্ট পরিমাণে একটা টাকা নিতে পারবেন আশা করি যে এই বিষয়টা  আপনারা বুঝতে পেরেছেন  

8. ইউটিউব চ্যানেল খুলতে পারেন 

আপনারা যদি ভিডিও বানাতে পারেন বা আপনারা যদি কোন একটা বিষয়ে দক্ষ হয়ে থাকেন তাহলে আপনারা সেই বিষয় নিয়ে ইউটিউবে ভিডিও বানাতে পারেন।  আর আপনারা ইউটিউব থেকে ভিডিও বানিয়ে কিন্তু বেশ ভালো পরিমাণে  মুনাফা অর্জন করতে পারবেন 

আপনারা ইউটিউবে এমন ভিডিও বানাতে হবে যে ভিডিও গুলো বছর বয়সে বলতেছে কিন্তু সেই সম্পর্কের কোন রিসোর্স ইউটিউবে নেই এরকম ভিডিও যদি আপনারা বানাতে পারেন তাহলে আপনাদের সাথে কেউ আটকাতে পারবেনা 

আর আপনারা যদি এমন একটা বিষয় নিয়ে কাজ করেন যে বিষয় নিয়ে বড়  ইউটিউবার আছে তারা ভিডিও বানিয়ে রেখে দিয়েছে সেই সমস্ত বিষয় নিয়ে ভিডিও বানালে কিন্তু আপনাদের সফল হতে অনেক সময় লেগে। 

Admin

আমি একজন স্টুডেন্ট , বর্তমানে একাউন্টিং বিষয় নিয়ে অনার্স করতেছি, আর তার সাথে সাথে লেখালেখি করি। ফ্রী সময় যখন হয় তখন আমি যে বিষয়গুলো জানি সেই বিষয়গুলো সম্পর্কে আপনাদেরকে একটু আইডিয়া দেওয়ার চেষ্টা করি এই ওয়েবসাইটের মাধ্যমে।

Post a Comment

Previous Post Next Post